শুক্রবার , ২৫ মার্চ ২০২২ | ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. করোনা ভাইরাস
  2. খেলার খবর
  3. চাকরির খবর
  4. তথ্য ও প্রযুক্তি
  5. ধর্ম
  6. বাংলাদেশ
  7. বিনোদন
  8. বিশ্ব
  9. ব্যবসা বাণিজ্য
  10. মতামত
  11. রাজনীতি
  12. লাইফস্টাইল
  13. শিক্ষা

সাতটি অভ্যাস বদলে দেবে জীবন

প্রতিবেদক
ifrat nisa
মার্চ ২৫, ২০২২ ৯:৫০ পূর্বাহ্ণ

ছোট ছোট সাতটি অভ্যাস আপনার জীবনটাই ইতিবাচকভাবে বদলে দেবে। আর আপনি নিজেই অনুভব করতে পারবেন সেই পরিবর্তন। তবে শর্ত হলো, এই সাত অভ্যাস টানা এক মাস অনুসরণ করতে হবে।

১.

প্রতিদিন অন্তত সাত ঘণ্টা ঘুমাতে হবে। সেটা আট ঘণ্টা হলে বেশি ভালো। টানা এক মাস সাত ঘণ্টা ঘুমানোর চেষ্টা করুন। প্রতিদিন একই সময়ে ঘুমাতে যান। তাহলে একই সময়ে ওঠার অভ্যাসও হয়ে যাবে। এভাবে অনুশীলন করলে সেটা অভ্যাসে পরিণত হবে

২.

প্রতিদিন তিন লিটার বা ১২ গ্লাস পানি পান করুন। সেটা যদি একান্তই সম্ভব না হয়, অন্তত ৮ থেকে ১০ গ্লাস পানি পান করতে হবে। বাইরে বের হলে পানির বোতল সঙ্গে নিন। নির্দিষ্ট সময় পরপর পানি পান করুন। এতে শরীর সারাক্ষণ আর্দ্র থাকবে। এভাবে এক মাস পানি পান করলে সেটা আপনার শরীরের দাবিতে পরিণত হবে। তখন নির্দিষ্ট সময় পরপর আপনার শরীরই মনে করিয়ে দেবে যে এখন পানি পান করতে হবে।

৩.

মানসিক স্বাস্থ্যের সঙ্গে সূর্যালোকের সরাসরি আর গভীর সম্পর্ক আছে। শীতপ্রধান দেশে আত্মহত্যার হার বেশি। কেননা, দেখানে দিন ছোট, রাত বড়। সূর্যের আলো কম পড়ে। আপনার শরীরে প্রতিদিন অন্তত ১০ মিনিট সূর্যের আলোর দরকার আছে। তাই দিনে ১০ থেকে ৩০ মিনিট রোদে থাকুন। সেটা যদি ভোর ৬টা থেকে সকাল ৯টা—এই তিন ঘণ্টার ভেতর হয়, সেটা সবচেয়ে ভালো। আলট্রাভায়োলেট রশ্মি এড়িয়ে কেবল ভিটামিন ডি উৎপন্ন করতে সক্ষম, এমন উপকারী আলো পাওয়া যাবে। এক মাস অভ্যাস করে এটাকে জীবন যাপনের সঙ্গী করে নিন।

৪.

চিনিকে না বলুন। এক মাস চিনি ছাড়া চা, কফি খান। প্রথম প্রথম কষ্ট হবে। পরে দিব্যি অভ্যাস হয়ে যাবে। তখন দেখবেন চিনি দিলেই বরং অস্বস্তি লাগছে। ঠিকমতো চা বা কফির স্বাদ পাওয়া যাচ্ছে না। চিনি শরীর বা ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। চিনির সঙ্গে বাইরের ভাজাপোড়াও বাদ দিন। নিতান্তই খেতে ইচ্ছে করলে ঘরেই বানিয়ে নিন আপনার মনমতো চিকেন ফ্রাই, পিৎজা বা বার্গার। অবশ্য মাসে একবার ‘চিট মিল’–এর নাম করে খেতেই পারেন।

হাঁটা স্বাস্থ্যের জন্য খুব ভালো
take a walk

৫.

সপ্তাহে অন্তত তিন দিন ব্যায়াম করুন। দেখুন ঘরের আশপাশে জিম বা যোগব্যায়ামের জায়গা আছে কি না। না থাকলে ঘরেই ম্যাট কিনে বসে পড়তে পারেন। ঘর বা বারান্দার একটা পাশেও বানিয়ে নিতে পারেন ছোট্ট জিম। এগুলো যদি কিছুই না পারেন, তাহলে অন্তত হাঁটতে বেরিয়ে পড়ুন। সেই অবস্থাও না থাকলে বাসার ছাদে হাঁটুন। ছাদ না থাকলে ঘরে। তবে জোরে জোরে অন্তত আধা ঘণ্টা হাঁটতে হবে, যাতে গা ঘামে।

৬.

প্রতিদিন আধা ঘণ্টা পড়ুন। সেটি হতে পারে পত্রিকা, অনলাইন পত্রিকা, কোনো বিশেষ লেখা, ছোটগল্প, উপন্যাস, ভ্রমণকাহিনি বা প্রবন্ধ। সে যা–ই হোক না কেন, দিনে আধা ঘণ্টা পড়ার অভ্যাস আপনার মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা সচল রখতে সহায়তা করে। এভাবে আপনার জানাশোনার পরিধি সব সময় ঠেলে বাড়াবে এই আধা ঘণ্টা।

দিনে ১০ মিনিট মেডিটেশন করুন
দিনে ১০ মিনিট মেডিটেশন করুন

৭.

দিনে ১০ মিনিট মেডিটেশন করুন। ঘরের ভেতরে নিরিবিলি কোনো জায়গায় মেডিটেশন করতে পারেন। ঘুম থেকে উঠেই সেরে ফেলতে পারেন এটি। কিছুই না পারলে একটা জায়গায় পিঠ টানটান করে চুপচাপ বসে বুক ভরে শ্বাস নিন। শরীরের ভেতর বাতাসটা অনুভব করুন। ধীরে ধীরে নিশ্বাস ছেড়ে দিন। এবার নাকের এক পাশ দিয়ে শ্বাস নিন। কয়েক সেকেন্ড ভেতরে রেখে দিন। অন্য নাক দিয়ে ধীরে ধীরে ছেড়ে দিন। এরপর যে নাক দিয়ে নিশ্বাস ছেড়েছেন, সেই নাক দিয়ে শ্বাস নিন। অন্য নাক দিয়ে ছাড়ুন। এভাবে আপনার শরীর আর মনকে সারা দিনের জন্য তৈরি করুন।

সর্বশেষ - চাকরির খবর